স্টিয়ারিং ছাড়া গাড়ি! | sampadona bangla news
বৃহস্পতিবার , ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

স্টিয়ারিং ছাড়া গাড়ি!

সম্পাদনা অনলাইন : সেলফ ড্রাইভিং কার বা স্বচালিত গাড়ির খবর এখন পুরনো হয়ে গেছে। গুগল ছাড়াও বহু প্রতিষ্ঠান এমন গাড়ি তৈরি করেছে যেগুলো চালকের সাহায্য ছাড়াই নিজে নিজে চলে। কোনো দুর্ঘটনা ছাড়াই পৌঁছে যায় গন্তব্যে। তবে এসব গাড়িতে একটা স্টিয়ারিং থাকে। আর একজন মানব চালক তার সামনে হাত গুটিয়ে বসে থাকে। যদিও তাকে একবারের জন্যও স্টিয়ারিংয়ে হাত দিতে হয় না। স্টিয়ারিংটি রাখা হয় এই কারণে যদি কোনোভাবে যন্ত্র ভুল করে বসে তখন মানব চালক স্টিয়ারিং ধরে গাড়িটিকে বিপদমুক্ত করবে।
কিন্তু স্বচালিত গাড়িকে এবার প্রকৃত অর্থেই ‘স্বনির্ভর’ করে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা কোম্পানি জেনারেল মোটরস। তারা চালকবিহীন একটি গাড়ি গত শুক্রবার উন্মুক্ত করেছে যাতে চালকের জন্য কোনো আসনই নেই। চালকের আসনের কোনো দরকারও নেই, কারণ এই গাড়িতে কোনো স্টিয়ারিং নেই। গাড়ির সামনে দুটো সিট আছে বটে, তবে তা কেবল যাত্রীদের বসার জন্য। ‘অদৃশ্য চালক’ গাড়িটিকে নিরাপদে গন্তব্যে নিয়ে যাবে।’
গত ১১০ বছর ধরে গাড়ি তৈরি করে আসছে জেনারেল মোটরস।  এই সময়ের মধ্যে ১ কোটির বেশি গাড়ি তৈরি করেছে কোম্পানিটি। কিন্তু স্টিয়ারিং ছাড়া গাড়ি তৈরির কথা কোনোদিন ভাবতেও পারেনি। এবার বাস্তবে সেটি করে দেখালো তারা। চালক ও স্টিয়ারিং বিহীন এই গাড়ির নাম দেয়া হয়েছে ক্রুজ অটোমেশন। বছরখানেকের মধ্যে তারা এধরনের গাড়ি যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে উবারের মতো রাইড শেয়ারিং সার্ভিসে নিযুক্ত করতে চায়। এতে যাত্রী তার মোবাইল ফোনের অ্যাপ থেকে স্থান ও গন্তব্য বলে দিলেই একদম খালি গাড়িটি নিজেই ছুটে গিয়ে যাত্রীর সামনে দাঁড়িয়ে দরজা খুলে দেবে। যাত্রী গাড়িতে ওঠার পর নিজেই দরজা লক করে গন্তব্যে ছুটবে। ভাড়ার টাকা কাটা হবে অ্যাপে যোগ করা যাত্রীর ক্রেডিট কার্ড অথবা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে।
কোম্পানিটি জানিয়েছে, গাড়িতে মানব নিয়ন্ত্রিত অ্যাক্সেলারেটর, ব্রেক কোনোটিই নেই। সবই করবে গাড়ি। যাত্রী ভয়েস কমান্ড দিয়ে গাড়িকে কোনো নির্দেশ দিতে পারবে। এছাড়া ভেতরে প্রতিটি সিটের পেছনে টাচস্ক্রিন আছে। এই স্ক্রিনে গুগল ম্যাপে গাড়িটি কোথায় যাচ্ছে তা দেখা যায়। এই স্ক্রিন থেকেও যাত্রী ইচ্ছা করলে তার গন্তব্য পরিবর্তন করতে কিংবা অন্যান্য নির্দেশ দিতে পারবেন।
তারা এই গাড়ি চালানোর জন্য ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হাইওয়ে ট্রাফিক সেফটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে আবেদন করেছে। তারা নিরাপত্তার কিছু সেকেলে ধারা বাতিলের অনুরোধও জানিয়েছে। কারণ ওই ধারাগুলো মানব ড্রাইভারদের জন্য প্রযোজ্য ছিল। ইতিমধ্যে তারা যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি গাড়িবহুল সড়কে কোনো ঝামেলা ছাড়াই ট্রায়ালও দিয়েছে বলে জানিয়েছে। সিএনএন
Share on FacebookTweet about this on TwitterShare on Google+Email this to someone

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*