শাহরুখের ২৭ বছরের জয়যাত্রা | sampadona bangla news
রবিবার , ৮ ডিসেম্বর ২০১৯

শাহরুখের ২৭ বছরের জয়যাত্রা

সম্পাদনা অনলাইন : বরাবরই নস্টালজিয়া পেয়ে বসে শাহরুখ খানকে। নানা সময়ে দেখা গেছে আড্ডায়, সাক্ষাৎকারে পুরোনো দিনগুলোতে ফিরে যেতে। যেমন আজ ফিরে গেলেন সাতাশ বছর আগে, ১৯৯২ সালের ২৫ জুনে। ১৯৯২ সালের এই দিনটাতেই মুক্তি পেয়েছিল তাঁর দিওয়ানা ছবিটি। যে ছবি দিয়ে বলিউড রাজ্য জয়যাত্রা চালু হয়েছিল, আজও চালু আছে যা। আজ সেই দিনটির কথা টুইটে নিজেই জানালেন শাহরুখ।

যদিও শাহরুখ আগে সই করেছিল ‘দিল আশনা হ্যায়’ ছবিতে। তবে তার আগেই মুক্তি পায় ‘দিওয়ানা।’ বলিউডে ২৭ বছর পূর্ণ করলেন শাহরুখ খান। সে স্মরণে অভিনন্দন জানিয়ে টুইটারে ঝড় তুলেছেন তাঁর ভক্তরা।
দিওয়ানায় শাহরুখ ছাড়াও ছিলেন দিব্যা ভারতী ও ঋষি কাপুর। এই ছবিটি ছিল তাঁর জন্য ‘এলাম, দেখলাম, জয় করলাম’ এর মতো। মোড় ঘুরতে শুরু করে বলিউড বাদশার। এই ছবির জন্য সেরা নবাগত অভিনেতা হিসেবে তিনি পান ফিল্মফেয়ার পুরস্কার।

তারপর কেটে যায় ২৭টি বছর। এই ২৭ বছরে বলিউড চলচ্চিত্রে দাপটের সঙ্গেই কাজ করে গেছেন। নিজেকে বারবার ভেঙেছেন, গড়েছেন শাহরুখ। যদিও শেষ ছবি জিরোর ব্যর্থতার পর এখনো কোনো ছবিতে হাত দেননি শাহরুখ। অবশ্য সেসবে পাত্তা দিচ্ছেন না শাহরুখের ভক্তরা। বরং আজ শাহরুখের স্মৃতিকে নানাভাবে উসকে দিচ্ছে না তারা, সামাজিক বিভিন্ন মাধ্যমে। লিখলে বাড়াবাড়ি হবে না, বলিউড অভিষেকের ২৭ তম বছরে বিশ্বজুড়ে যে ভাবে তাঁকে ভালোবাসা জানিয়েছেন অনুরাগীরা তা নিঃসন্দেহে যথেষ্ট অনুপ্রেরণা জোগাবে শাহরুখকে।

শাহরুখ খান, বলিউড জয়যাত্রার ২৭ বছর পূর্তি হলো আজ ছবি সংগৃহীততাজ মুহম্মদ খান আর লতিফ ফাতিমার পরিবারে ১৯৬৫ সালের ২ নভেম্বর জন্ম হয় শাহরুখের। শাহরুখের বাবা পাকিস্তানের পেশোয়ারের মানুষ, মা ভারতের হায়দরাবাদের আর দাদি কাশ্মীরের। তবে শাহরুখের প্রথম টেলি-সিরিয়াল শুরু হয় ১৯৮৯ সালে। কর্নেল কাপুরের পরিচালনায় ‘ফৌজি’ নামের সেই ধারাবাহিক খুবই জনপ্রিয় হয়েছিল। সেখানেই প্রথমবার ভারতের দর্শক দেখলেন পরের কয়েক বছরে স্টার থেকে সুপার স্টার হয়ে ওঠা শাহরুখ খানকে।
১৯৮৯-৯০ সালে রেণুকা সাহানের সঙ্গে ‘সার্কাস’ ধারাবাহিকে কাজ করতে শুরু করেন শাহরুখ। ১৯৯১ সালের এপ্রিল মাসে মারা যান শাহরুখ খানের মা। মায়ের মৃত্যুর শোক থেকে দূরে সরে যেতে এক বছরের জন্য শাহরুখ দিল্লি থেকে মুম্বাই গিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর ফেরা আর হয়নি আর। সে বছরই প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন শাহরুখ খান। সেটি ছিল হেমা মালিনী অভিনীত ‘দিল আসনা হ্যায়’। নায়ক হিসাবে শাহরুখকে প্রথম দেখা গেল পরের বছর ২৫ জুন ১৯৯২তে ‘দিওয়ানা’য়। কঠোর পরিশ্রম করতে পারেন শাহরুখ। মাত্র চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা ঘুমান তিনি। তাঁর প্রিয় উক্তি হলো, ‘ঘুমানো মানে জীবন নষ্ট করা’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*