ফেসবুকে মুহাম্মদ (সাঃ) কে অবমাননার অভিযোগে কুমিল্লায় দুইজন আটক | sampadona bangla news
বৃহস্পতিবার , ২৪ মে ২০১৮

ফেসবুকে মুহাম্মদ (সাঃ) কে অবমাননার অভিযোগে কুমিল্লায় দুইজন আটক

ফেসবুকসম্পাদনা অনলাইন ডেস্ক: ফেসবুকে ইসলামের নবী মুহাম্মদ (সাঃ) কে অবমাননার অভিযোগে কুমিল্লায় আটক দুই ব্যক্তিকে পুলিশ আজ আদালতে পাঠিয়েছে। এছাড়া হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ী-ঘরে হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ আজ আরও ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে।

এদিকে ফেসবুকে নবীর (সাঃ) অবমাননার গুজবকে কেন্দ্র করে যে গ্রামে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে সেখানকার মানুষেরা বলছেন ফেসবুক বা ইন্টারনেটে নবী মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটাক্ষ করার বিষয়ে কোন তথ্য বা ধারনা তাদের ছিল না। ফেসবুকে নবী মুহাম্ম (সাঃ) এর নামে কটাক্ষ করার সন্দেহে কুমিল্লার হোমনা থানার বাঘসীতারামপুর গ্রাম থেকে ঘটনার দিনেই দুইজনকে আটক করে পুলিশ। হোমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম শিকদার বলছিলেন যে দুইজনকে তারা আটক করেছেন তাদেরকে আজ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া হামলার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করেছে আরও ১২জনকে। রবিবার দুপুরে এ হামলার আগে অভিযুক্তদের নিয়ে একটি শালিস বসার কথা ছিল। হোমনা উপজেলার একজন মেম্বার নাঈম মোল্লা বলছিলেন নবী মুহাম্মদকে নিয়ে ফেসবুকে কটাক্ষ করা হয়েছে এ ধরনের একটি খবর তাদের কাছে আসলে ঐ দুজনকে নিয়ে গ্রামে সালিশের আয়োজন করা হলেও তার আগেই এই হামলার ঘটনা ঘটে। তিনি বলছিলেন পাশের গ্রাম পাচকিত্তার কয়েকটি মাদ্রাসা থেকে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলা তারা অনুমান করছেন।

এই ঘটনায় হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্তত ৩৫টি বাড়ি ও মন্দিরে ভাংচুর করা হয়। ফেসবুক বা সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে এই ধরনের মন্তব্য আদৌ করা হয়েছে কিনা বা কি মন্তব্য করা হয়েছে সে সম্পর্কে এলাকার অনেক মানুষই তাদের অজ্ঞাত প্রকাশ করলেন । আটক দুইজনের মধ্যে একজনের মা বলছিলেন যেদিন তার বাড়ি সহ আশেপাশের বাড়িতে হামলা করা হয় কেবল সেদিনই তিনি এই ফেসবুক বা কটাক্ষ করার প্রসঙ্গে জানতে পারেন। এদিকে এই হামলার পর বাঘসীতারামপুর গ্রামে ক্ষতিগ্রস্তরা বলছেন এ ধরনের ঘটনার সাথে কেউ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। তার পরিবর্তে সাধারণ মানুষের ওপর এধরনের হামলায় হওয়াতে তারা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বাঘসীতারামপুরে একটি অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। দুই বছর আগে কক্সবাজারের রামুতে একই ধরনের এক ঘটনায় বৌদ্ধ পল্লীতে হামলা হয়েছিল। গত বছর পাবনায়ও ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে হামলা হয়েছিল হিন্দুদের বাড়ী-ঘরে। বিবিসি

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*