প্রধান বিচারপতির ছুটির মেয়াদ বাড়ল | sampadona bangla news
রবিবার , ২২ অক্টোবর ২০১৭

প্রধান বিচারপতির ছুটির মেয়াদ বাড়ল

সম্পাদনা অনলাইন : প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ছুটির মেয়াদ বাড়ল। এক মাসের পর এখন ওই ছুটির মেয়াদ আরো দশ দিন বাড়িয়ে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে। ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধি করায় এখন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনের দায়িত্ব ওই সময় পর্যন্ত প্রদান করে প্রজ্ঞাপন জারির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে আইন মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র।
এদিকে বিদেশ যাওয়ার বিষয়টি রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করতে চিঠি দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সিনহা। গতকাল মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি চিঠি সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ১৩ অক্টোবর অথবা এর নিকটবর্তী তারিখে ঢাকা ত্যাগ করবেন প্রধান বিচারপতি। ১০ নভেম্বর অথবা এর নিকটবর্তী তারিখে বিদেশ থেকে তিনি দেশে ফিরবেন।
গত ৩ অক্টোবর থেকে পহেলা নভেম্বর পর্যন্ত এক মাসের ছুটিতে যান প্রধান বিচারপতি সিনহা। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি দাবি করেছে জোড় করে প্রধান বিচারপতিকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তবে তা অস্বীকার করেছে সরকার। এই ছুটিতে থাকাবস্থায় অস্ট্রেলিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করেন তিনি ও তার স্ত্রী সুষমা সিনহা। অষ্ট্রেলিয়া দূতাবাস তাদেরকে তিন বছরের ভিসা দেয়। দেশটিতে তাদের বড় কন্যা সূচনা সিনহা বসবাস করছেন। বিদেশে গিয়ে প্রধান বিচারপতি সেখানে উঠবেন বলে জানা গেছে। এদিকে এক মাসের ছুটিতে থাকাবস্থায় প্রধান বিচারপতি তার ছুটির মেয়াদ দশ দিন বাড়িয়েছেন। ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধির বিষয়টিও মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চিঠি দিয়ে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করা হয়েছে। সেই হিসাবে তিনি এখন ১০ নভেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে থাকবেন। আগে তার ছুটির মেয়াদ ছিল পহেলা নভেম্বর পর্যন্ত।
প্রসঙ্গত প্রধান বিচারপতি যখন বিদেশে যান তখন একটি সরকারি আদেশ (জিও) জারি করতে হয়। ওই সরকারি আদেশ জারি করতে সুপ্রিম কোর্ট থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়ে থাকে। গতকাল মন্ত্রণালয়ে পাঠানো ওই চিঠিটি এখন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে যাবে। এরপরই বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে সরকারি আদেশ জারি হবে বলে মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়।
Share on FacebookTweet about this on TwitterShare on Google+Email this to someone

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*