সম্পাদনা অনলাইন : ২০১৬ সালের পর মাঝে দু’বছরের ব্যবধান। ‘জঙ্গল বুক’ এর তুমুল সাফল্যের পর পরিচালক অ্যান্ডি সেকার্সের হাত ধরে ফের ‘মোগলি’ ফিরছে বড় পর্দায়। এ বার নতুন মোড়কে। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে এই ছবির ট্রেলর। তাতেই দর্শকদের উৎসাহ বেড়ে গিয়েছে বেশ কয়েক গুণ। ছবির মুক্তি ১৯ অক্টোবর।

পরিচালক জন ফাবরুর ‘জঙ্গল বুক’ আর অ্যান্ডি সেকার্সের ‘মোগলি’ আসলে আলাদা কিছু নয়। নেকড়ের মাঝে বড় হয়ে ওঠা সেই মানবশিশু মোগলিরই গল্প। আকিলার মাতৃত্ব যাকে দিয়েছে পরিপূর্ণতা। বালু, বাগিরা তাকে জঙ্গলের আইন শেখায়। ক্রুর খলনায়কের মতো সামনে এসে দাঁড়ায় শের খান। সামনে জলজ্যান্ত মানবশিশু দেখে ‘হিপনোটাইজ’ করার চেষ্টা করে সাপিনী কা।

তবে ফারাক হল, এ বারের মোগলি বেশ কিছুটা পরিণত। শ্বাপদ সঙ্কুল জঙ্গল পেরিয়ে সে পা রেখেছে মানব সমাজে। এখন সে আগুনের ব্যবহার জানে। কা-এর ফিসফিসানির সামনে বুক চিতিয়ে দাঁড়াতে পারে। ছবির প্রেজেন্টেশনেও রয়েছে চমক।

দেখুন ছবির ট্রেলর:

 

ট্রেলরে দেখা গিয়েছে, ঘন গাছ পাতায় ছাওয়া জঙ্গলের পরিবেশ আরও ছমছমে। দাঁত উঁচিয়ে তেড়ে আসা হিংস্র পশুদের এড়িয়ে এক মাথা ঝাঁকড়া চুল নিয়ে দুরন্ত গতিতে ছুটে চলেছে গল্পের নায়ক রোহন চাঁদ। অ্যান্ডি সেকার্সের গল্পের সেই মোগলি। বালুর গলাও দিয়েছেন অ্যান্ডি। বাগিরার কণ্ঠে ক্রিশ্চিয়ান ব্যালে ও শের খানের ভূমিকায় বেনেডিক্ট কুম্বারব্যাচ অনবদ্য। ছবিতে বিশেষ ভূমিকায় দেখা যাবে ‘স্লামডগ মিলেনিয়ার’ খ্যাত ফ্রিডা পিন্টোকে।

৯০-এর দশকে যাঁরা বড় হয়েছেন তাঁদের কাছে রবিবার মানেই ‘জঙ্গল জঙ্গল পাতা চালা হ্যায়…। রুডওয়ার্ড কিপলিং-এর কাল্ট উপন্যাস ‘জঙ্গল বুক’ ছোট পর্দায় ধরা দেওয়ার পর থেকেই হয়ে উঠেছিল একটা গোটা জেনেরেশনের শৈশবের সঙ্গী। এখনও, সেই নস্টালজিয়া পুরোপুরিই কায়েম রয়েছে।